Tech

পুরোনো আইফোন বিক্রি করার আগে যা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে

সম্প্রতি আইফোন ১৫ এবং ১৫ প্রো সিরিজের ফোন রিলিজ হবার পর অনেক আইফোন ব্যবহারকারী তাদের আইফোন আপগ্রেড করার ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে উঠেছে। যদিও নতুন ফিচার এবং অত্যাধুনিক টেকনোলজি এর কারনে মানুষ যে এই সিরিজের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে যাবে এটা খুবই স্বাভাবিক। সেক্ষেত্রে অনেক সময় দেখা যায় যে আইফোন ব্যবহারকারীরা তাদের পুরাতন আইফোন বিক্রি করে কিংবা একে এক্সচেঞ্জ/বিনিময় করার মাধ্যমে নতুন আইফোন কিনে থাকে। 

আইফোন সেল করা বা ট্রেড করার কথা চিন্তা করার আগে আপনাকে আপনার ডিভাইসের নিরাপত্তার জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। আইফোন সেল করার আগে করণীয় কাজগুলো অনেকসময় জটিল মনে হতে পারে। তবে কিছু নির্দিষ্ট উপায় অবলম্বন করে আপনি এই কাজটি আরো সহজ এবং সাবলীলভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আইফোন সেল বা ট্রেড করার পূর্বে কি কি বিষয়ে খেয়াল রাখা উচিত সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

আইফোন ব্যাকআপ করা

নতুন একটি স্মার্টফোনে সুইচ করা সবসময় একটি উত্তেজনাকর অভিজ্ঞতার সৃষ্টি করে থাকে। আপনি নতুন ফিচারের পাশাপাশি আকর্ষণীয় সকল টেকনোলজি ব্যবহার করার সুবিধা পেয়ে যাবেন।

তবে নতুন ডিভাইসে সুইচ করার ক্ষেত্রে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করার মাধ্যমে আপনার ট্রানজিশন খুব সাবলীল হয়ে যায়। এর মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি পদক্ষেপ হলো আপনার প্রয়োজনীয় সকল ডাটা ব্যাকআপ করে রাখা। নতুন ফোন আপনি অবশ্যই একেবারে শুরু থেকে আপনার মূল্যবান ছবি, কন্ট্যাক্টস, মেসেজেস কিংবা ফাইল ব্যতীত ব্যবহার শুরু করতে চাইবেন না। তাই আপনার আইফোনকে বিদায় বলার আগে হাতে কিছু সময় নিয়ে সকল প্রয়োজনীয় ডাটা ব্যাকআপ করে নিন। আপনি ম্যাক, আইক্লাউড অথবা পিসির মাধ্যমে খুব সহজেই আপনার আইফোনের ডাটা ব্যাকআপ করে নিতে পারবেন। 

ফোন বাহ্যিক ভাবে পরিষ্কার করা

আইফোন সেল কিংবা ট্রেড করার ক্ষেত্রে এটির ভালো অবস্থা নিশ্চিত করা অনেক জরুরী। একটি নরম পাতলা কাপড় দিয়ে প্রথমে আইফোনটি ভালোভাবে মুছে নিন। ফোনের ডিসপ্লের পাশাপাশি এর সকল ধরনের এক্সেসরিজ যেমন চার্জার কিংবা হেডফোন ভালোভাবে মুছে নিতে হবে। বিশেষ করে স্ক্রিনে থাকা যেকোনো ধরনের দাগ বা আঙ্গুলের ছাপের দিকে বেশি গুরুত্ব প্রদান করতে হবে। এর ফলে আপনি যখন আপনার ফোন পরবর্তী মালিকের কাছে দিবেন তখন সেটি নতুনের মতো দেখাবে। 

পরিষ্কার করার পাশাপাশি ফোনের কোনো ধরনের ড্যামেজ ইস্যু আছে কি না সে বিষয়েও খেয়াল রাখতে হবে। স্ক্রিনে কোনো ধরনের ক্র‍্যাক অথবা স্ক্র‍্যাচ আছে কিনা সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। এছাড়াও ক্যামেরা, বাটন এবং স্পিকার ঠিকভাবে কাজ করছে কিনা সেটি খেয়াল রাখতে হবে। পাশাপাশি ফোনের সকল ফাংশনালিটি সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা সেটি লক্ষ্য রাখতে হবে। এর ফলে নতুন যেই মালিক ফোনটি ব্যবহার করবে সে যেন ভালো অভিজ্ঞতা পায় সেটি মাথায় রাখা উচিত। তাছাড়া এর ফলে আপনি যদি একটি পুরানো আইফোনকে অ্যাপল কিংবা অন্য কোম্পানিতে ট্রেড করতে চান তাহলে কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়া সেটি পেরিয়ে যেতে পারবেন। 👉 আইফোন ফ্যাক্টরি রিসেট করার নিয়ম

ডিভাইস এবং একাউন্ট আনপেয়ার করা

আপনার আইফোনের সাথে কানেক্ট থাকা সকল ডিভাইস যেমন স্মার্টওয়াচ কিংবা ব্লুটুথ হেডফোন আনপেয়ার করে ফেলুন। এর ফলে নতুন মালিকের এসকল ডিভাইস কানেক্ট করতে কোনো ধরনের সমস্যা হবে না।  এছাড়াও এতে আপনার নিজস্ব তথ্য সংরক্ষিত থাকবে। ব্লুটুথ ডিভাইস আনপেয়ার করার জন্য আপনার আইফোনের ব্লুটুথ সেটিংসে যেয়ে কানেক্টেড ডিভাইস খুঁজে বের করুন এবং দিজ ডিভাইস সিলেক্ট করুন। এটি খুব সূক্ষ্ম তবে গুরুত্বপূর্ণ একটি স্টেপ যেটি করা খুব বেশি প্রয়োজন। আপনি যদি আপনার অ্যাপল ওয়াচ আইফোনের সাথে কানেক্ট করে রাখেন তাহলে সেটিকেও আনপেয়ার করা প্রয়োজন।

পরবর্তীতে আপনার আইফোনে যে সকল একাউন্ট লগ ইন করা আছে সেগুলো সাইন আউট করে নিন। এর মধ্যে আইক্লাউড, অ্যাপল মিউজিক এবং অন্যান্য সকল অ্যাপ কিংবা সার্ভিস যেগুলো ব্যবহার করে থাকেন সেগুলো অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে আপনি আপনার নিজস্ব তথ্য এবং ডাটা সুরক্ষিত করতে পারবেন। এছাড়া নতুন মালিক যখন তাদের নিজেদের একাউন্ট স্মার্টফোনে লগ ইন করতে চাবেন তখন বাড়তি কোনো ঝামেলার সম্মুখীন হতে হবে না।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

আইফোন ১৪ প্রো

👉 আইফোনে কন্টাক্ট পোস্টার তৈরি এবং কাস্টমাইজ করার উপায়

আইফোন রিসেট ফেলা

আপনার আইফোন থেকে সকল ডাটা মুছে ফেলা হয়েছে কিনা সেটি সম্পর্কে শিওর হবার জন্য ফ্যাক্টরি রিসেট দেওয়া প্রয়োজন। এটি করার ফলে আপনার সকল অ্যাপ রিমুভ হবার পাশাপাশি ফোন থেকে সকল সেটিংস এবং ফাইল মুছে ফেলতে পারবেন এবং এটি দেখতে একদম নতুনের মতো মনে হবে। এটি করার জন্য সেটিংস অ্যাপে গিয়ে জেনারেল সিলেক্ট করুন। এরপরে ট্রান্সফার অথবা রিসেট ফোনের জন্য নিচে স্ক্রল করুন। এখানে থাকা ইরেজ অল কন্টেন্ট এন্ড সেটিংস নির্বাচন করে আপনার সিদ্ধান্ত কনফার্ম করুন। এটি করার পরে আপনার আইফোন নতুন মালিকের জন্য তৈরি হয়ে যাবে এবং আপনার সকল নিজস্ব তথ্য নিরাপদে সরে যাবে।

সকল ধরনের সিম কার্ড এবং অন্যান্য এক্সেসরিজ রিমুভ করা

সর্বশেষে সিম কার্ড, কোনো ধরনের কেইস অথবা স্ক্রিন প্রোটেক্টর আপনার পুরাতন আইফোনে থাকলে সেটি দূর করা খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটি নতুন মালিককে তাদের নিজস্ব কার্ড এবং অন্যান্য সকল এক্সেসরিজ ব্যবহার করার সুযোগ প্রদান করবে। আপনি যখন আপনার আইফোন থেকে সিম কার্ড খুলতে যাবেন তখন অ্যাপল অথবা আপনার ক্যারিয়ারের দেওয়া সঠিক নির্দেশনা মেনে সেইভাবে পদক্ষেপ গ্রহন করুন। এতে করে আপনার ডিভাইসে কোনো ধরনের ড্যামেজের সৃষ্টি হবে না। একবার যখন আপনার সিম কার্ড খুলে নেওয়া হবে তখন আপনি ফোনকে সেল বা ট্রেড করার জন্য ভালোভাবে প্যাকেজ করে রাখতে পারবেন। 

আপনি যখন এসকল পদক্ষেপ গ্রহন করবেন তখন আপনাকে সেল করার জন্য বা ট্রেড ইন করার জন্য সঠিক জায়গা নির্ধারণ করুন। আপনি যদি অনলাইন মার্কেটপ্লেসে সেল করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন তাহলে মার্কেট রিসার্চ করে নিয়ে সঠিক দাম নির্ধারণ করে ফেলুন। আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারবেন। এছাড়াও নিত্য নতুন প্রযুক্তি বিষয়ক নানা ধরনের তথ্য এবং প্রয়োজনীয় টিপস এন্ড ট্রিকস পেতে চোখ রাখুন আমাদের এই ওয়েবসাইটে। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button