News

সাকিবের পর মিরাজ-মুস্তাফিজের আঘাতে বিধ্বস্ত আফগানিস্তান

আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে বাংলাদেশের। ধর্মশালা স্টেডিয়ামে ইনিংসের শুরু থেকে উইকেট কামড়ে ধরে আফগানিস্তানকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন দুই ওপেনার রহমানুল্লাহ গুরবাজ ও ইব্রাহিম জাদরান। তবে এরপর আফগান শিবিরে জোড়া আঘাত হানেন সাকিব। সাকিবের পর আফগান শিবিরে আঘাত হানেন মেহেদি হাসান মিরাজ।

শনিবার (৭ অক্টোবর) ধর্মশালায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে টস জিতে আফগানদের ব্যাটিংয়ে পাঠান অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

শুরুতেই আফগানদের দুই উইকেট শিকার করেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক। এরপর পর পর দুই ওভারে দুই আফগান ব্যাটার হাসমতউল্লাহ এবং রহমানউল্লাহকে ফেরান মেহেদি হাসান মিরাজ এবং মোস্তাফিজুর রহমান।

অফ স্টাম্পের বাইরের লাইনে করেছিলেন মিরাজ, টেনে মারার চেষ্টা ছিল হাসমতউল্লাহ শহীদির। তবে প্লেসমেন্টটা ঠিকঠাক করতে পারেননি, যেভাবে খেলতে চেয়েছিলেন পারেননি সেটিও। আবার উঠেছে ক্যাচ। সেটি নিয়েছেন হৃদয়।

পরের ওভারেই রহমানউল্লাহ গুরবাজ অফ স্টাম্পের বাইরে থেকে তুলে মারতে গেলেন মোস্তাফিজকে। ড্রাইভ করেছিলেন। তবে ক্যাচ গেছে ডিপ পয়েন্টে। সীমানার কাছ থেকে ছুটে এসে ভালো ক্যাচ নিয়ে তাকে ফিরিয়েছেন তানজিদ। দুই ব্যাটসম্যানই ফিরেছেন ১৮ রান করে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আফগানিস্তানের সংগ্রহ ৬ উইকেট হারিয়ে ৩২.৪ ওভারে ১৪৪ রান।

ইনিংসের নবম ওভারে বোলিংয়ে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন সাকিব। দলীয় ৪৭ রানে ২৫ বলে ২২ রান করে সাকিবের বলে তানজিদ তামিমকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান ইব্রাহিম।

ইব্রাহিমের বিদায়ের পর ক্রিজে আসা রহমত শাহকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাট করতে থাকেন গুরবাজ। তবে দলীয় ৮৩ রানে আবারও উইকেট হারায় আফগানিস্তান। ফের উইকেটের দেখা পান সাকিব। ২৫ বলে ১৮ রান করা রহমতকে সাজঘরে ফেরান তিনি।

রহমতের বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন আফগান অধিনায়ক হাশমতুল্লাহ শাহিদি। গুরবাজকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা করেন তিনি। তবে দলীয় ১১২ রানে জোড়া উইকেট হারায় আফগানিস্তান।

৩৮ বলে ১৮ রান করা শাহিদিকে সাজঘরে ফেরান মিরাজ। আর এরপরেই গুরবাজকে আউট করে বাংলাদেশকে চতুর্থ সাফল্য এনে দেন পেসার মুস্তাফিজ। ৬২ বলে ৪৭ রান করে ফিরে যান তিনি। ২৭ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ১১২ রান সংগ্রহ করেছে আফগানিস্তান।

বাংলাদেশ জার্নাল/এফএম/ওএফ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button