Tech

পেপাল এর এতো বেশি জনপ্রিয়তার কারন কি?

বর্তমান সময়ে আমরা বিভিন্ন ধরণের কাজ অনলাইনে ইন্টারনেটের মাধ্যমেই করে নিতে পারি। যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হন তাহলে বিভিন্ন ধরণের অনলাইন পেমেন্ট এবং ক্লায়েন্টদের থেকে টাকা গ্রহণ করার উদ্দেশ্যে একটি অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহার করতে হয়। একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল সার্ভিসের প্রয়োজন হয়ে থাকে। সেসব ডিজিটাল সার্ভিসের জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আমাদের দেশের বাইরের কিছু কোম্পানিকে অর্থ প্রদান করতে হয়।

এবার, এই ধরণের আন্তর্জাতিক পেমেন্টগুলো সহজেই করার জন্য আমাদের প্রয়োজন হয় একটি ওয়ার্ল্ড ওয়াইড অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম এর। এবং, পেপাল হলো এরকম একটি ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট সিস্টেম, যেটাকে আন্তর্জাতিক ভাবে পেমেন্ট পাঠানো বা পেমেন্ট গ্রহণ করার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। বিদেশে প্রচুর ফ্রিল্যান্সার ক্লায়েন্টদের জন্য বিভিন্ন কাজ করার ক্ষেত্রে এই পেপাল পেমেন্ট সিস্টেম এর মাধ্যমেই টাকা গ্রহণ করতে পারছেন। এমনিতে, পেপাল এর মতোই আরো অনেক অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম রয়েছে। তবে, আন্তর্জাতিক ভাবে টাকা পাঠানো বা টাকা গ্রহণ করার ক্ষেত্রে, পেপাল অনেক বেশি জনপ্রিয় ও অধিক পরিমানে ব্যবহার করা হয়। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা পেপাল কেন এতো বেশি জনপ্রিয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

পেপাল কি?

পেপাল হলো এমন একটি ডিজিটাল সেবা, যার মাধ্যমে অনেক সহজে পেমেন্ট গ্রহণ বা পেমেন্ট পাঠানো সম্ভব। এবং সম্পুর্ন পেমেন্ট এর প্রক্রিয়াটি হবে অনলাইনে। এই অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহার করে নিজের ব্যক্তিগত কাজের উদ্দেশ্যে বা নিজের ব্যবসার ক্ষেত্রে অর্থ লেনদেন করা যায়। তাছাড়া, পেপাল আন্তর্জাতিক ভাবে দেশের বাইরে টাকা পাঠানো বা দেশের বাইরের থেকে টাকা গ্রহণ করার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়। পেপাল এর মাধ্যমে টাকার লেনদেন করার জন্যে, আপনার ব্যাংক একাউন্ট এবং ব্যাংক ডেবিট কার্ড এর তথ্য দিতে হবে। এর পর, আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্ট থেকে পেপাল এর মাধ্যমে যেকোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানির কাছে অনলাইনে টাকা পাঠাত পারবেন।

ঠিক সেভাবেই, যখন আপনার পেপাল একাউন্টে কেউ টাকা পাঠাবে, তখন আপনি সেই টাকা নিজের ব্যাঙ্ক একাউন্টে ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন। পেমেন্ট এড্রেস হিসেবে এখানে ব্যক্তির ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করা হয়। মানে, যেভাবে একটি ব্যাংক একাউন্ট খোলার পর আপনাকে একটি একাউন্ট নাম্বার দেওয়া হয়, ঠিক সেভাবেই পেপাল একাউন্ট তৈরি করার সময়, আপনার নিজের একটি ইমেইল এড্রেস দিয়ে দিতে হয়। এবং, পেপাল একাউন্ট তৈরি করার সময় দেওয়া আপনার ইমেইল এড্রেসটি আপনার পেপাল একাউন্ট নাম্বার হিসেবে কাজ করে। তাহলে, পেপাল এর বিষয়ে এক কথায় বললে, পেপাল হলো টাকা পাঠানো ও গ্রহণ করার একটি অনলাইন সার্ভিস।

পেপাল কেন ব্যবহার করা হয়?

পেপাল এর ব্যবহার নিয়ে তেমন নতুন করে বলার কিছু নেই। কেননা ইতিমধ্যেই বলা হয়েছে যে পেপাল আন্তর্জাতিক ভাবে টাকা গ্রহণ করা ও টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। তবে, নিচে পেপাল এর কিছু অন্যান্য কারণ বলে দিচ্ছি, যার কারণে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পেপাল এর ব্যবহার হওয়া দেখা যায়।

  • কোনো ঝামেলা ছাড়া কেবল একটি ইমেইল এড্রেস এর মাধ্যমে টাকা পাঠানো সম্ভব।
  • টাকা গ্রহণ করার ক্ষেত্রে, কেবল নিজের পেপাল একাউন্ট এর সাথে জড়িত ইমেইল আইডি দিয়েই গ্রহণ করতে পারবেন।
  • পেপাল এর মাধ্যমে, আন্তর্জাতিক ভাবে অনেক সহজে টাকা পেমেন্ট করা হয়।
  • এছাড়াও পেপাল এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ভাবে কোনো সমস্যা ছাড়া, পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবেন।
  • পেপাল অনলাইনে টাকা লেনদেন করার অনেক সুরক্ষিত একটি মাধ্যম।
  • দেশের বাইরের বিভিন্ন অনলাইন শপিং ওয়েবসাইট থেকে পণ্য কেনার বিপরীতে পেপাল এর মাধ্যমে পেমেন্ট করা অপশন থাকে।
  • পেপাল একাউন্টে আপনি একাধিক ব্যাঙ্ক একাউন্ট এবং ডেবিট কার্ড যোগ করতে পারবেন। তাই, টাকার লেনদেন করার ক্ষেত্রে, নিজের প্রয়োজন হিসেবে ব্যাঙ্ক এর বাছাই করতে পারবেন। এই সুবিধের জন্য অনেকেই পেপাল ব্যবহার করেন।
  • পেপাল মোবাইল অ্যাপ এর মাধ্যমে, নিজের মোবাইল থেকেই এর ব্যবহার সম্ভব।

পেপাল কেন এতো বেশি জনপ্রিয়? 

এত প্রতিযোগিতামূলক জায়গায়ও পেপাল ​​এত জনপ্রিয় হওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। পেপ্যাল ​​এখনও অনলাইন পেমেন্টের জন্য বাজারের শীর্ষ স্থানীয় পর্যায়ে থাকার তিনটি প্রধান কারণ হলো-

পেপাল ব্যবহার করা সহজ

ডিজিটাল লেনদেনের ক্ষেত্রে পেপ্যাল ​​সহজবোধ্য। এটি আপনার ওয়েবসাইটের সাথে একীভূত করা সহজ এবং আপনি যদি ব্যক্তিগত বিক্রয়ের জন্য এটি ব্যবহার করতে চান তবে বিভিন্ন পয়েন্ট অফ সেল সিস্টেম অফার করে৷

পেপাল কর্তৃক দেয়া চিপ কার্ড রিডার আপনাকে পেমেন্ট পেতে সাহায্য করে এবং এটি অ্যাপল পে এবং গুগল পে থেকে পেমেন্ট গ্রহণ করে। অন্যান্য জনপ্রিয় পেমেন্ট সিস্টেমের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়ায় পেপাল কোম্পানির সাফল্যের মূল উপাদানগুলির মধ্যে একটি। 👉 পেপাল কি? পেপাল এর সুবিধা কি?

paypal

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

পেপাল অনেক নিরাপদ

আমরা সবাই জানি আমাদের ডেটা নিরাপদ রাখা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আজকাল, সাইবার-আক্রমণ ক্রমবর্ধমান। পেপ্যাল ​​ব্যবহার করার প্রধান সুবিধাগুলির মধ্যে একটি হল এটি এনক্রিপশনের মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখতে একটি সেন্ট্রাল সিস্টেম ব্যবহার করে। 

পেপাল এর একটি অতিরিক্ত স্তরের নিরাপত্তা রয়েছে এবং এটি আপনাকে প্রতারণামূলক কার্যকলাপ থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। আপনি যদি পেপাল এর মাধ্যমে আপনার কেনাকাটা করেন এবং শেষ পর্যন্ত প্রতারণার শিকার হন, আপনি টাকা ফেরত দাবি করতে পারেন। এটি অবশ্যই একটি বোনাস এবং ভোক্তারা পেপালের মাধ্যমে অর্থ প্রদান করতে পারলে আপনার সাইটে কেনাকাটা করার সময় তাদের আত্মবিশ্বাসের একটি বড় মাত্রা দেয়৷ 

পেপাল সাশ্রয়ী

আপনি কিসের জন্য এটি ব্যবহার করছেন তার উপর নির্ভর করে, অনলাইন পেমেন্ট করার ক্ষেত্রে পেপাল একটি সাশ্রয়ী পছন্দ হতে পারে। বন্ধু বা পরিবারের কাছে টাকা পাঠানোর জন্য বা ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য কোন ফি নেই। যাইহোক, যদি আপনি একটি ব্যবসায়িক লেনদেনের জন্য পেপাল এর মাধ্যমে অর্থ পাঠান তবে আপনাকে ফি চার্জ করা হবে। আপনি যদি আপনার তহবিলে তাৎক্ষণিক অ্যাক্সেস চান, তাহলে পেপাল ১% ফি চার্জ করে। আপনি যদি কয়েক কার্যদিবস অপেক্ষা করতে খুশি হন, তাহলে আপনি বিনামূল্যে আপনার অর্থ অ্যাক্সেস করতে পারবেন। এছাড়াও আন্তর্জাতিক লেনদেন করার ক্ষেত্রে পেপ্যাল ​​একটি দুর্দান্ত বিকল্প হতে পারে। 👉 বাংলাদেশের জন্য পেপালের বিকল্প জানুন

বর্তমানে দেশে ফ্রিল্যান্সারদের সংখ্যা বৃদ্ধি হবার সাথে সাথে পেপালের চাহিদাও বেশ দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। পেপাল কেন এতো জনপ্রিয় এ সম্পর্কিত আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারেন।

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button