News

ফ্লাইটের মত সিট, লাগজারি বাথরুম, এরকম হবে ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন

তৈরি হয়ে গেল ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন। ভারতের এই প্রথম বুলেট ট্রেনটি মুম্বাই থেকে সাবরমতী পর্যন্ত চলবে। জাপানের শিনকানসেন E-5 সিরিজের বুলেট ট্রেনের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে এই বিশেষ বুলেট ট্রেনটিকে। তবে, ভারতীয় যাত্রীদের চাহিদা অনুযায়ী এই ট্রেনে কিছু পরিবর্তন করে তৈরি করা হয়েছে। এই বুলেট ট্রেনে ৬৯০ জন যাত্রী যাত্রা করতে পারবেন। এতে ফ্লাইটের মতো ফার্স্ট ক্লাস, বিজনেস ক্লাস এবং ইকোনমি ক্লাস থাকবে। তবে, এই বুলেট ট্রেনের সিটগুলো ফ্লাইটের সিটের চেয়েও বেশি আরামদায়ক।

NHSRCL এর কর্মকর্তারা জানান, শুরুতে এই ট্রেনে ১০টি কোচ থাকবে। পরবর্তীতে এটিকে ১৬ কোচে রূপান্তর করা হবে। এই বুলেট ট্রেনের ফার্স্ট ক্লাসে ১৫টি সিট থাকবে। বিজনেস ক্লাসে ৫৫টি সিট থাকবে এবং ইকোনমি ক্লাসে ৬২০ জন যাত্রী যাত্রা করতে পারবেন।

এই বুলেট ট্রেনে প্লেনের মতোই ওয়াশরুম থাকবে। এছাড়াও, একটি বিশেষ কক্ষ থাকবে যেখানে কোন মহিলা তার সন্তানকে দুধ খাওয়াতে পারবেন। এছাড়াও, কোন অসুস্থ ব্যক্তিও সেখানে বিশ্রাম নিতে পারবেন। প্লেনের মতোই এই ট্রেনেও মাথার উপরে লাগেজ রাখার জায়গা থাকবে। দুই সিটের মাঝে ভালো জায়গা থাকবে এবং ফার্স্ট ও বিজনেস ক্লাসের সিটগুলো মুভ করা যাবে। LED লাইটিংয়ের পাশাপাশি পড়ার জন্য রিডিং ল্যাম্পও থাকবে। কেউ যেকোনো সময় বসে পড়তে বা কাজ করতে পারবেন। এখানে আপনি মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ এবং অন্যান্য ডিভাইস চার্জ করতে পারবেন।

মুম্বাই থেকে সাবরমতী পর্যন্ত ৫০৮ কিলোমিটার দূরত্বে চলাচলকারী এই বুলেট ট্রেনের ট্রায়াল ২০২৬ সালে সুরাত থেকে বিলিমোরার মধ্যে হবে। এখানে ট্রেনটি তার অপারেশনাল স্পিড ৩২০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায় চলবে। এর সর্বোচ্চ গতিবেগ ৩৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা হবে। এই বুলেট ট্রেন ভারতের পরিবহন ব্যবস্থায় একটি যুগান্তকারী পরিবর্তন আনবে। এটি সময় এবং দূরত্বকে কমিয়ে দেবে এবং যাত্রীদের আরও আরামদায়ক ভ্রমণের সুযোগ দেবে। এই বুলেট ট্রেন ভারতের অর্থনীতি এবং পর্যটন শিল্পকে আরও চাঙ্গা করতে সাহায্য করবে। এছাড়াও, এটি ভারতকে বিশ্বের অন্যতম প্রযুক্তিগতভাবে উন্নত দেশ হিসেবে তুলে ধরবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button