TechTricks

হ্যাকারদের হাত থেকে মোবাইলকে রক্ষা করবেন যেভাবে!! জেনে নিন বিস্তারিত

আসসালামু আলাইকুম সুপ্রিয় ট্রিকবিডি এর সকল সদস্যগণ, কেমন আছেন সবাই আশা করছি আল্লাহর রহমতে সবাই ভালো আছেন, আমি আল্লাহর রহমতে ভালো আছি বলে আজকে আবারো হাজির হলাম আপনাদের মাঝে নতুন একটি পোষ্ট নিয়ে। তো চলুন দেরি না করে শুরু করছি আজকের পোস্ট।

বর্তমান সময় আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে গিয়েছে স্মার্টফোন, আমাদের বিভিন্ন কাজে এটির ব্যবহার দিন দিন বেড়েই চলেছে, কিন্তু স্মার্টফোনের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে স্মার্ট ফোন হ্যাকিং এর সংখ্যা ও দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়ছে অনেক ক্ষেত্রে। তাই আমাদের সকলের উচিত স্মার্ট ফোন ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন করা। স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনেকেই আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

অনেক ক্ষেত্রে ইন্টারনেট ব্যবহার না করেও আমাদের কে ট্রাকিং করা সম্ভব করতে পারে হ্যাকাররা। দূরে বসে থেকে আমাদের অবস্থান এর তথ্য সংগ্রহ করতে পারে।আজকে আপনাদের কিছু ট্রিক শেখাবো যার মাধ্যমে আপনারা আপনাদের স্মার্টফোনটি হ্যাকারদের কবল থেকে রক্ষা করতে সক্ষম হবেন। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার ব্যাঘাত ঘটবে না।

মোবাইল বন্ধ রাখা

আমরা অনেক চেষ্টা করলেও অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন রকম স্পাইওয়্যার ব্যবহার করে আমাদের ওপর নজরদারি করা হয়, তাই মোবাইল ফোনের খুব বেশি দরকার না পড়লে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মোবাইল ফোনটিকে বন্ধ করে রাখা। বলা হয়ে থাকে স্মার্টফোন বন্ধ রাখলে নেটওয়ার্ক কাভারেজ মোবাইল ফোনের সঙ্গে সংযোগ রাখতে পারেনা এর ফলে অবস্থান নিশ্চিত করা কঠিন হয়ে পড়ে হ্যাকারদের জন্য। রাতে ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন বন্ধ করে ঘুমানো উত্তম, এতে মোবাইলের রেডিয়েশন থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

এয়ারপ্লেন mode ব্যবহার

সচরাচর আমরা এয়ার প্লেন মোড ব্যবহার করে থাকি বিমানে চলাচল করার জন্য, এছাড়াও দেখা যায় অনেক ক্ষেত্রে মোবাইল ইন্টারনেট সেবা বিঘ্ন ঘটলে আমরা এয়ারপ্লেন মোড অন অফ করে ঠিক করে নেই। মোবাইল ফোনকে হ্যাকিং এর হাত থেকে রক্ষা করতে এয়ার প্লেন মোড অনেক কার্যকরী হতে পারে। কারণ এর মোড ব্যবহার করলে মোবাইলে নেটওয়ার্ক সেবা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং যোগাযোগ করা সম্ভব হয় না। তাই মোবাইলবীদ দের মত অনুযায়ী হ্যাকিং থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সর্বোত্তম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হলো মোবাইল ফোনে এয়ারপ্লেন মোড ব্যবহার করা।

লোকেশন এক্সেস বন্ধ রাখা

অনেক ক্ষেত্রেই আমরা আমাদের মোবাইল ফোনে লোকেশন এক্সেস চালু করে রাখি। এটি কিন্তু মোটেও ঠিক নয়, যেই সময়টিতে আমাদের লোকেশন ব্যবহার করা প্রয়োজন বিশেষ করে গুগল ম্যাপ ব্যবহার করা প্রয়োজন সেই সময়টিতে লোকেশন এক্সেস চালু রাখা উচিত, অন্য সময় বন্ধ রাখা উচিত। না হলে যদি আপনার স্মার্টফোনটি হ্যাকিং এর শিকার হয়ে থাকে তাহলে হ্যাকার gmail হ্যাক করে আপনার মোবাইল ফোনের লোকেশন বের করে ফেলতে পারবে। সুতরাং এই বিষয়ে সতর্ক হোন।

সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন

আমরা কারণে-অকারণে আমাদের মোবাইল ফোনে বিভিন্ন রকম সার্চ ইঞ্জিন অ্যাপ ইন্সটল করে থাকি যেমন opera mini, uc browser এছাড়াও আরো অন্যান্য থার্ড পার্টি অ্যাপস। এসব অ্যাপস মূলত আমাদের পার্সোনাল ডাটা রেখে দেয়, তাই এগুলো apps থেকে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হ্যাকারদের কবলে পড়ে যেতে পারে। ভাই সব সময় চেষ্টা করবেন গুগল এর নিজস্ব apps browser ব্যবহার করতে। কারণ সেগুলো প্রতিদিন নিরাপত্তা সেক্টর গুলো আপডেট করা হয়, ফলে ব্যবহারকারীর তথ্য হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশেই কমানো সম্ভব হয়।

মোবাইল ফোনের সিস্টেম আপডেট করা

আমাদের অনেক ক্ষেত্রেই মোবাইল ফোনের সিস্টেম আপডেট এর মেসেজ আসে। কিন্তু আমরা আমাদের সিস্টেম আপডেট করি না আমরা সেটাকে ফেলে রাখি, মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো সব সময় চেষ্টা করে তাদের সিস্টেমে পরিবর্তন আনতে গ্রাহকদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করার জন্য। কিন্তু এসব সিস্টেম আপডেট যদি আমরা না দেই তাহলে সেসব সিস্টেম এর বিভিন্ন রকম ত্রুটি বের করে হ্যাকাররা বিভিন্ন মোবাইল অপারেটর ব্যান্ডের ফোনকে হ্যাক করতে পারে, তাই যদি কখনো আপনার স্মার্টফোনটিতে সিস্টেম আপডেটের মেসেজ আসে তাহলে অবশ্যই সিস্টেমটিকে আপডেট করে নিবেন তাহলে আপনিও হ্যাকের হাত থেকে রক্ষা পেতে পারেন।

ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার না করা

অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় আমাদের মোবাইল ডাটা শেষ হয়ে যায়, ধরুন আপনি এমন জায়গাতে রয়েছেন আপনার আশেপাশে পাবলিক ফ্রি ওয়াইফাই রয়েছে, ভুল করেও সেসব পাবলিক ফ্রী ওয়াইফাই কানেক্ট করতে যাবেন না আপনার মোবাইলে। কারণ এগুলো ফ্রি হিসেবে দেওয়া হয়েছে বলে অনেক ক্ষেত্রে হ্যাকাররা এটিতে সিস্টেম আপডেট করে,, এবং যখনই এটি যে কারো মোবাইল ফোনে কানেক্টেড করা হয় তখন সেটির নোটিফিকেশন হ্যাকারদের কাছে চলে যায়, মোবাইল ফোন হ্যাক করা আরো সহজ হয়ে যায় হ্যাকারদের জন্য, তাই সব সময় পাবলিক ওয়াইফাই ব্যবহার থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করুন।

ফিশিং লিংকে ক্লিক না করা

অনেক সময় আমাদের মোবাইল ফোনে বিভিন্ন রকম লোভনীয় অফার চলে আসে, এরকম অনেক নোটিফিকেশন আমরা পেয়ে থাকি আমাদের মোবাইল ফোনের স্ক্রিনে, কিন্তু সেখান থেকে বলা হয় এখানে ক্লিক করুন বা লিংকে ক্লিক করুন ভুলেও এসব লিংকে ক্লিক করা যাবে না। হ্যাকাররা এসব লোভনীয় অফার দিয়ে ফিশিং লিংক তৈরি করে, আর এইসব লিংকে ক্লিক করলে সরাসরি আপনার মোবাইল ফোনটি হ্যাকিং এর কবলে পড়তে পারে। তাই এই থেকে বিরত থাকুন।

আপনারা যদি উপরে উল্লেখিত এই সবগুলো পালন করতে পারেন তাহলেই আপনার মোবাইল থেকে হ্যাকারের কবল থেকে রক্ষা করতে পারবেন। তো এই ছিল বিস্তারিত ধন্যবাদ সবাইকে পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য। ট্রিকবিডির সাথেই থাকুন।
আমার ছোট্ট একটা ওয়েবসাইট রয়েছে।

ভিজিট করে দেখে আসতে পারেন আমার ওয়েবসাইটটি এখানে থেকে

যেকোনো প্রয়োজনে আমাকে পাবেন আমার ফেসবুকে এখানে👈👈

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button