TechTricks

ইতালিতে স্টুডেন্ট ভিসায় মাস্টার্স করতে গেলে কী কী প্রয়োজন

আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সকলে ভালো আছেন।

আজ আমি আপনাদের মাঝে ইতালিতে স্টুডেন্ট ভিসায় মাস্টার্স করতে গেলে কি কি ডকুমেন্ট আপনাকে প্রস্তুত করতে হবে তা সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো।

ইতালিতে মাস্টার্সের আবেদন করার জন্য‌ প্রথমে যে ডকুমেন্টগুলো লাগবে:

১. পাসপোর্ট। (Passport)

পাসপোর্টের মেয়াদ অবশ্যই এক বছর থাকতে হবে।

২. সকল একাডেমিক সার্টিফিকেট এবং ট্রান্সক্রিপ্ট (all academic certificate and tenniscript)

Bachelor এর সার্টিফিকেট লাগবে।

৩. আইএলটিএস অথবা মিডিয়াম অফ ইন্সট্রাকশন [IELTS or Medium of Instruction (MOI)]

৪. স্টেটমেন্ট অফ পারপাস/ মোটিভেশনাল লেটার [Statement of purpose (SOP) or motivational letter]

স্টেটমেন্ট অফ পারপাস সব থেকে বেশি দরকারি। তাই এটি সবথেকে ভালো করে লিখতে হবে।

৫. ইউরোপাস সিভি (CV)

৬. ফরমাল পিকচার (সাদা ব্যাকগ্রউন্ড) [(Formal Picture (White Background)]

আপনার ছবি ব্যাকগ্রাউন্ড অবশ্যই সাদা হতে হবে। কেননা ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হলে সবখানেই গ্রহণযোগ্য হবে।

৭. রিকমেন্ডেশন লেটার (দুইটি)(Recommendation Letter)

রিকমেন্ডেশন লেটার দুইটা আপনি ইউনিভার্সিটি থেকে নিতে পারবেন।

৮. জব সার্টিফিকেট (যদি থাকে) [ Job Certificate]

আপনি যদি জব করে থাকেন সেই কোম্পানি থেকে একটি জব সার্টিফিকেট নিবেন।

চলুন এখন বলি, কিভাবে আবেদন করতে হবে?

অনেকগুলো জনপ্রিয় ওয়েবসাইট আছে যেগুলোতে গেলে আপনি অনেক তথ্য পাবেন। কবে আবেদন করতে হবে এবং কবে তা শেষ হবে এই ওয়েবসাইটে গেলে পাবেন 👇 https//www.mastersportal.com

এছাড়াও ইউনিভার্সিটি Ranking দেখার জন্য এই দুইটি ওয়েবসাইট অনুসরণ করতে পারেন 👇

https//www.topuniversites.com

https//www.timeshighereducation.com

university যাচাই এবং কোন সাবজেক্টে আপনি পড়তে ইচ্ছুক সবগুলো আপনাকে সিলেক্ট করে নিতে হবে।

এখন আপনাদের আবেদন করার পর কি করতে হবে? অবশ্যই ‌অপেক্ষা। তবে আপনি এই সময় আপনার সকল সার্টিফিকেটগুলো সত্যায়িত করে নিবেন।

তারপর আপনি অফার লেখার পর কি করবেন?

অফার লেটার পাওয়ার পর যে ডকুমেন্টগুলো আপনাকে তৈরি করে নিতে হবে-

১. CIMEA

CIMEA অফার লেটার পাওয়ার আগেও করা যায় আবার পরেও করা যায়। কিন্তু আপনারা পরে করবেন। কেননা অফার লেখার যদি না পান তাহলে আপনাদের টাকা নষ্ট হবে CIMEA করতে।

CIMEA কেন করা হয়?

CIMEA করা হয় আপনার সার্টিফিকেট গুলো ভেরিফিকেশন করার জন্য এবং পরবর্তীতে আপনার সার্টিফিকেট গুলো তারা ইতালিয়ান ভাষা পরিবর্তন করে।

২. Accommodation

Accommodation এর জন্য আপনাকে একটি বাসা রেন্ট নিতে হবে। আপনার কোন আত্মীয় থাকলে আপনি তার থেকে নিতে পারেন অথবা যদি না পান তাহলে আপনি ইউনিভার্সিটি তে মেইল করতে পারেন তাহলে তারাই ব্যবস্থা করে দিবে‌।

৩. Health and travel insurance

জীবন বীমা থেকে একটি ইন্সুরেন্স করে নিবেন এক বছরের জন্য এর জন্য আনুমানিক খরচ হতে পারে ৩১ থেকে ৩৫ হাজার টাকার মত। এছাড়াও আপনারা কোন প্রাইভেট ইন্সুরেন্স কোম্পানি থেকেও করে নিতে পারেন এক্ষেত্রে তারা আপনাকে কম টাকাতেও করে দিতে পারে।

৪. Sponsor’s Bank Statement (6 Months)

ব্যাংক স্টেটমেন্ট দুইটা নিতে হবে একটা আপনার জন্য আর যে আপনাকে স্পন্সর করেছে তার জন্য আর একটা।

৫. Applicant’s Bank Statement (6 Months)

এখানে আপনি আপনার একাউন্টে আপনার পরিবারের অবস্থা বিবেচনা করে টাকা দেখাবেন। সবাই ১২ লক্ষ টাকা দেখায় কিন্তু আপনি যদি পারেন এর থেকে বেশি দেখাতে তাহলে আরো ভালো হয়।

৬. Source Of Income Documents

আপনাকে সোর্স অফ ফাউন্ডের একটি ডকুমেন্ট দেখাতে হবে।

৭. Proof Family Relationship With Sponsor

যাকে স্পন্সর করবেন, আপনার বাবা। আপনার বাবা কি করে, তার পেশা কি, তিনি যদি জব করেন তাহলে জবের সার্টিফিকেট বা যে আপনাকে স্পন্সর করবে তার একটি Affidavit লাগবে।

৮. কভার লেটার (Cover Letter)

কভার লেটার ভিএফএস ফাইল জমা দেয়ার আগে লাগবে। এখানে আপনি আপনার পুরো পরিকল্পনা তুলে ধরবেন আপনি কিভাবে বাসা রেন্ট নিলেন, কিভাবে ইন্সুরেন্স করলেন যাবতীয় সবকিছুই তুলে ধরবেন। চেষ্টা করবেন যেন সবকিছুই লিখে দিতে পারেন।

সব ডকুমেন্ট তৈরি করার পর আপনি কোথায় এগুলো জমা দিবেন?

সব ডকুমেন্ট তৈরি করার পর ভিএফএস গ্লোবাল ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার সব ডকুমেন্ট জমা দিবেন।

ওয়েবসাইট লিংক:👇 https//www.vfsglobal.com

তারপর অপেক্ষা করবেন। আপনাকে ইন্টারভিউ ডাকা হতে পারে। আপনাকে সরাসরি ভিসা দিয়ে দিতে পারে অথবা ভিসা রিজেক্টও করে দিতে পারে। বাকিটা আপনার ভাগ্যের উপর।

(ইতালিতে পড়ালেখা শেষ করার পর পুরো ইউরোপে আপনার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। ইউরোপের যে কোন দেশে আপনি জব করার সুযোগ পাবেন।)

আপনারা যদি স্টুডেন্ট ভিসায় ব্যাচেল করতে গেলে কি কি লাগে বা কি করা লাগবে তা সম্পর্কে জানতে চান তাহলে কমেন্ট করবেন আমি আপনাদের জন্য পরবর্তী পোস্টে তা জানিয়ে দিব ইনশাল্লাহ।

সকালে ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। নিজের যত্ন নিবেন। সকলের জন্য রইল শুভকামনা।

আল্লাহ হাফেজ।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button