TechTricks

এড ব্লকার অ্যালাও না করার দিকে আগাচ্ছে ইউটিউব

ইউটিউব গ্রাজুয়ালি সম্ভবত তাদের প্লাটফর্মে এড ব্লকার আর অ্যালাও করবে না। এই খবরটা অবশ্য নতুন না। ইন ফ্যাক্ট আরো কয়েক মাস আগে থেকেই তারা পরীক্ষামূলকভাবে কিছু কিছু ব্যবহারকারীকে “Ad Blockers are Not Allowed on YouTube” মেসেজটি প্রদর্শন করছে। অনলাইনে এবছরের মে মাসের দিকে এ নিয়ে পোস্ট দেখতে পাচ্ছি। নতুন এখানে একটি বিষয়ই যে গতকালকে খুব সম্ভবত প্রথমবারের মত আমি নিজে এই মেসেজটির সম্মুখীন হলাম, এবং আজকে আরো একাধিকবার।

ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্মের মধ্যে ইউটিউবের একচ্ছত্র রাজত্ব। এধরণের মনোপলি ব্যক্তিগতভাবে সব সময়ই আমার কাছে আশঙ্কাজনক মনে হয়। কেননা ব্যবহারকারীদের একটি অংশ ইতোমধ্যে এতটা অভ্যস্থ অথবা জড়িত হয়ে গেছেন যে চাইলেও তাদের জন্য ইউটিউব প্লাটফর্মের ব্যবহার সীমিত করা খুবই কঠিন।

এরপরও এড ব্লকারের ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দেয়াটা একটা বড় ডিশিসন, এজন্য সম্ভবত ব্যবহারকারীদের রিয়েকশন পর্যালোচনা করতে ও ব্যবহারকারীদের এর সাথে অভ্যস্থ করতে কিছুটা সময় নিচ্ছে ইউটিউব। এখন পর্যন্ত, অন্তত আমার ক্ষেত্রে কোন কোন সময়ে পপ আপ প্রদর্শিত হলেও রিলোড করা হলে এড ব্লকার ডিজেবল করা ছাড়াই কন্টিনিউ করা যাচ্ছে।

অবশ্য হয়ত এড ব্লকার ব্লক করার বিষয়টিও বাইপাস করা সম্ভব হবে, যেমন এখানে বর্তমানে পপআপ প্রদর্শনের ব্যাপারটি বাইপাসের কিছু উপায় রয়েছে।

তবে সত্যি বলতে এখানে ইউটিউবের দিক থেকে একটা বড় পয়েন্ট আছে এখানে। ইউটিউব অনেকের জন্যই একটা আর্নিং প্লাটফর্ম, এবং অনেকেই তাদের ক্যারিয়ার গ্রো করছে ইউটিউবকে কেন্দ্র করে। এক্ষেত্রে এডব্লকার অবশ্যই একটা বড় কনসার্ন প্লাটফর্ম ও সংশ্লিষ্ট ক্রিয়েটরদের জন্য।

একটা সময় পর্যন্ত আমি নিজে কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের সাপোর্ট নিশ্চিত করার জন্য এডব্লকার ব্যবহার করতাম না। তবে অনেক সময়ই প্রদর্শিত বিজ্ঞাপনগুলো অশোভন ও বিব্রতকর হয়ে থাকে এবং প্রাইভেসি কনসার্নও থাকে এখানে- যা ব্যবহারকারীর দিক থেকে এড ব্লকার ব্যবহারকে প্রয়োজনীয় করে তোলে।

তো সব মিলিয়ে এড ব্লকার অ্যালাও না করাটা অনেকটাই গ্রহণযোগ্য হবে বলে মনে করি, যদি গুগল তাদের এডসেন্স প্লাটফর্মটিতে বিজ্ঞাপন গ্রহণ করা ও প্রচার করার নিয়মগুলোতে আরো স্ট্রিক্টনেস আনে- স্ক্যাম, মিসলিডিং ও ইনঅ্যাপ্রোপ্রিয়েট বিজ্ঞাপনগুলো প্রদর্শন না হওয়া নিশ্চিত করে। পাশাপাশি বিজ্ঞাপনের সংখ্যা ও সময়কালেও ব্যবহারকারীদের স্বচ্ছন্দ্যের দিকটি গুরুত্ব দেয়া প্রয়োজন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button