TechTricks

চারিদিকে JPG, PNG, GIF আরও কত শত ফরম্যাট। কিন্তু কখনো ভেবে দেখেছেন এগুলার কোনটা কী কাজ?

#পোস্ট ১৯


আসসালামু আলাইকুম, সবাইকে। যারা ছবি নিয়ে কাজ করেন তারা অবশ্যই কখনো না কখনো চিন্তা করেছেন কোন ফরম্যাটে সেইভ করবেন? JPG, PNG, GIF আরও কত শত ফরম্যাট। কিন্তু কখনো ভেবে দেখেছেন এগুলার কোনটা কী কাজ? আসুন তাহলে মূল্ পার্থক্যগুলি জানার চেষ্টা করি তাতে আর কখনো এমন বিড়ম্বনায় পড়তে হবে না।


শুরুতেই মূল্য পার্থক্যগুলি জেনে নিইঃ

JPEG:

– এটি একটি কম্প্রেশন ফরম্যাট, যার মানে হল ছবি কম্প্রেসড হলে কিছু ছবির কোয়ালিটি নষ্ট হয়ে যায়।

–  ফটোগ্রাফ এবং অনেক রঙের জটিল ছবির জন্য সবচেয়ে বেশি ব্যবহার উপযোগী।

–  ফাইলগুলি PNG এবং GIF এর তুলনায় আকারে ছোট, যা ওয়েব পেইজে লোড করা সহজ করে তোলে৷

–  ব্যবহার করার সময় ছবির কোয়ালিটি এবং ফাইল সাইজের ভারসাম্য বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ। অত্যধিক কম্প্রেসের ফলে কোয়ালিটি নষ্ট হতে পারে।

PNG:

– একটি লসলেস কম্প্রেশন ফরম্যাট, যার মানে ইমেজ কম্প্রেসড হলে কোন ছবির কোয়ালিটি নষ্ট হয় না।

–  ক্লিয়ার সাধারণ ছবি এবং গ্রাফিক্সের জন্য সবচেয়ে ভালো ব্যবহার করা হয়।

–  ফাইলগুলি JPEG এবং GIF এর তুলনায় আকারে বড়, কিন্তু তারা হাই কোয়ালিটি ছবি অফার করে।

– আলফা চ্যানেল সাপোর্ট করে, যার অর্থ হল ছবির অংশগুলি ক্লিয়ার হতে পারে, আরও ক্রিয়েটিভ এডিটিং সাপোর্ট করে।

GIF:

– এটিও একটি লসলেস কম্প্রেশন ফরম্যাট, যার মানে ইমেজটি কম্প্রেসড হলে কোনো ছবির কোয়ালিটি নষ্ট হয় না।

– অ্যানিমেশন এবং কয়েকটি রঙের সাধারণ গ্রাফিক্সের জন্য সবচেয়ে ভাল ব্যবহার করা হয়।

– ফাইলগুলি PNG এবং JPEG এর তুলনায় আকারে ছোট, যা ওয়েব পেইজে লোড করা সহজ করে তোলে৷

– অ্যানিমেশন এবং লুপিং সাপোর্ট করে, এটিকে সাধারণ অ্যানিমেটেড গ্রাফিক্স তৈরির জন্য এটি জনপ্রিয়।


উপসংহারঃ

বিশেষত ছবি ফরম্যাট সিলেকশন করার সময়, আপনার ব্যবহৃত ইমেজের ধরণ এবং উদ্দেশ্য বিবেচনায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনি একটি ছবি বা সম্পূর্ণ ছবি ব্যবহার করেন যাতে অনেক রঙ রয়েছে তাহলে JPEG সম্ভবত সেরা সিদ্ধান্ত।
যদি আপনি একটি সাধারণ গ্রাফিক এবং ট্রান্সপারেন্সির চান তবে PNG।
এবং যদি আপনি একটি অ্যানিমেশন বা কিছু সাধারণ গ্রাফিক ব্যবহার করছেন যা কয়েকটি রঙ আছে তাহলে GIF সেরা বিকল্প।

সর্বোপরি ওয়েবপেইজে ব্যবহারের জন্য আপনার ইমেজগুলি সঠিকভাবে কম্প্রেস করা গুরুত্বপূর্ণ। এতে আপনার ওয়েবসাইটের লোডিং দ্রুত হবে এবং ব্যবহারকারীর ব্রাউজিং এক্সপেরিয়েন্স ইম্প্রুভ করবে।

নোটঃ JPEG এবং JPG মূলত একই জিনিস। পার্থক্য শুধু ফাইল এক্সটেনশনে। JPEG হল জয়েন্ট ফটোগ্রাফিক এক্সপার্টস গ্রুপের সংক্ষিপ্ত রূপ, যেটি এই ফর্ম্যাটটি তৈরি করেছে। JPEG ছবির জন্য ফাইল এক্সটেনশন হল .jpeg বা .jpg। উভয় এক্সটেনশনই ব্যবহার করা যেতে পারে এবং একই ইমেইজ ফরম্যাট নির্দেশ করে।


আজকের পোস্ট এখানেই শেষ করছি। এমন  ইন্টারেস্টিং সব পোস্ট দেখতে আমার প্রোফাইল ঘুরে আসতে পারেন। পরবর্তী পোস্ট দেখার আমন্ত্রণ রইলো । ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আর আমার জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ হাফেজ। <3


More about me

আমাকে সাপোর্ট করতে চাইলে আমার ব্লগ থেকে পোস্টটি পড়তে পারেন। 👉আমার ব্লগ সাইট👈

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button