Tech

জিমেইলের স্টোরেজ ফাঁকা করার সহজ কিছু উপায়

আপনি যদি রেগুলার জিমেইল ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন এবং আপনার মেসেজ ডিলিট করার অভ্যাস না থাকে তাহলে এক সময় আপনার স্টোরেজ পূর্ণ হয়ে যাবে। কেননা আপনার জিমেইলের ইনবক্স অবশ্যই ইনফিনিটি স্টোরেজ সমৃদ্ধ না। আপনার জিমেইলের স্টোরেজ এক সময় ঠিকই সম্পূর্ণ ভরে যাবে।

আপনি যখন এমন পরিস্থিতে পড়তে যাবেন তার কিছু দিন আগেই আপনাকে নোটিফিকেশন এর মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে যে আপনি খুব শীঘ্রই কোনো ইমেইল পাঠানো কিংবা গ্রহণ করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবেন। সাথে সাথে আপনি কোনো ফাইল ও আপলোড করতে পারবেন না। 

কেননা যদি কেউ গুগল একাউন্টে সাইন আপ করে তাহলে সে অটোমেটিক ভাবে ১৫ জিবি পর্যন্ত অনলাইন স্টোরেজের সুবিধা পেয়ে থাকেন। ১৫ জিবি শুনতে অনেক বেশি মনে হলেও আপনি শুধুমাত্র জিমেইলের জন্য ১৫ জিবি পাবেন না। বরং গুগলের যত ধরনের সার্ভিস রয়েছে যেমন গুগল ড্রাইভ, গুগল ফটোস এবং জিমেইল সব কিছু মিলিয়ে আপনি ১৫ জিবি স্টোরেজ পাবেন।

আপনি যদি গুগলের উক্ত তিনটি সার্ভিসের মধ্যে একাধিক সেবা গ্রহণ করে থাকেন তাহলে আপনার ১৫ অনলাইন স্টোরেজ খুব দ্রুত শেষ হয়ে যেতে পারে। আপনি যদি আপনার জিমেইল স্টোরেজ জনিত কোনো ধরনের সমস্যা ছাড়াই ব্যবহার করতে চান তাহলে অনেক উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার জিমেইলের সকল নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবেন। ফলে আপনি আপনার জন্য পর্যাপ্ত জায়গা ফাঁকা করার সুযোগ পেয়ে যাবেন। আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা আপনাদের জিমেইল একাউন্টের স্টোরেজ খালি করার কিছু সহজ এবং প্রয়োজনীয় উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

বেশি এটাচমেন্ট সম্বলিত মেইল খুঁজে বের করে ডিলিট করা

যে সকল মেইলের সাথে এটাচমেন্ট সংযুক্ত থাকে সে সকল মেইল আপনার জিমেইলে অনেক জায়গা দখল করছে। এগুলো খুঁজে বের করে ডিলিট করা হলে আপনার অনলাইন স্টোরেজের জায়গা ফাঁকা করা সম্ভব। তবে কোন মেইলগুলোতে এটাচমেন্ট রয়েছে সেগুলো পেজের পরে পেজ ম্যানুয়ালি খুঁজে বের করা বেশ কষ্ট সাধ্য। সেক্ষেত্রে আপনি জিমেইলের সার্চ ফাংশনের সাহায্য গ্রহণ করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে নিম্ন লিখিত পদক্ষেপ গুলো অনুসরণ করতে হবে –

  • প্রথমে আপনার স্মার্ট ফোন থেকে ওয়েব ব্রাউজার কিংবা মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে জিমেইল চালু করতে হবে।
  • এবার এখানে সার্চ ইন মেইল টেক্সট ফিল্ডে ট্যাপ করতে হবে।
  • এখানে আপনাকে “has:attachment larger:10M” টাইপ করতে হবে। 
  • এবার এন্টার বাটন অথবা সার্চ বাটন প্রেস করতে হবে।

এর ফলে আপনার জিমেইলের ইনবক্সে থাকা ইমেইলগুলোর মধ্যে যেগুলোর সাথে ১০ মেগাবাইটের থেকে বেশি সাইজের এটাচমেন্ট রয়েছে শুধু মাত্র সেগুলো আপনার সামনে চলে আসবে। আপনি চাইলে এই কোডটির ১০ মেগা বাইটের জায়গায় আপনার পছন্দ মতো সাইজ নির্ধারণ করতে পারেন। এতে করে আপনি এর চেয়েও বড় সাইজ সম্পন্ন এটাচমেন্ট যুক্ত মেইল খুঁজে নিতে পারবেন। 

এবার আপনি এখান থেকে আপনার পছন্দমত যেকোনো ইমেইল থ্রেডে ঢুকে দেখতে পারেন সেটি আপনার আর প্রয়োজন আছে কি না। আপনার যে সকল এটাচমেন্ট যুক্ত মেইলের প্রয়োজন নেই সেগুলো আপনি এখন ট্রাশ ক্যান আইকনে ক্লিক করে ডিলিট করে দিতে পারবেন। এছাড়াও আপনি ডেস্কটপে চেকবক্সে টিক দেওয়ার মাধ্যমে বা মোবাইল অ্যাপে ইমেইল থ্রেডের পাশে প্রোফাইল আইকনে ট্যাপ করে একাধিক ইমেইল ব্যাচ সিলেক্ট করতে পারেন। তারপর ট্র‍্যাশ ক্যানে ট্যাপ করে সব গুলো একসাথে ডিলিট করে দিতে পারেন। তবে আপনি যে সকল ইমেইল ডিলেট করেছেন সেগুলো পারমানেন্টালি ডিলিট করতে ভুলবেন না। এক্ষেত্রে সাইড প্যানেলে থাকা এম্পটি ট্র‍্যাশ নাউ অপশন ট্যাপ করে এই মেইল গুলো চির কালের জন্য ডিলিট করে দিন।

🔥🔥 গুগল নিউজে বাংলাটেক সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 🔥🔥

gmail storage

গুগলের স্টোরেজ ম্যানেজার ব্যবহার করে ক্লিনআপ সাজেশন ব্যবহার করা

সাধারণত গুগল একাউন্টে স্টোরেজ স্পেস ফিরে পাবার জন্য অন্যান্য আরো অনেক উপায় রয়েছে। এজন্য প্রথমে ওয়েব ব্রাউজারে https://one.google.com/storage/management লিংকটি ওপেন করুন। এই পেজে আপনার জিমেইল, গুগল ড্রাইভ কিংবা গুগল ফটোসের মধ্য থেকে কোন জায়গার আইটেম গুলো মুছে ফেলা দরকার সে ব্যাপারে পরামর্শ পেয়ে যাবেন। এছাড়া আপনি কোনো নির্দিষ্ট একটি আইটেম ডিলিট করার মাধ্যমে কত টুকু জায়গা ফাকা করতে পারবেন সে ব্যাপারেও ধারণা পেয়ে যাবেন। তবে আপনি যদি ম্যানুয়ালি কাজ করাকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন তাহলে গুগল ড্রাইভ কিংনা গুগল ফটোস থেকে আলাদা আলাদা করে জায়গা ফাঁকা করতে পারবেন। গুগল ড্রাইভে এই কাজ করার জন্য সবচেয়ে দ্রুত উপায় হলো-

  • আপনার কম্পিউটার থেকে https://drive.google.com/drive/u/0/quota চালু করুন এবং যদি প্রয়োজন হয় তাহলে গুগল একাউন্টে লগ ইন করুন। 
  • এখন নিশ্চিত করুন যে ব্যবহৃত স্টোরেজ কলামের তীরটি যেন নিচের দিকে পয়েন্ট করা থাকে। কেননা এর ফলে সবচেয়ে বড় ফাইল গুলো প্রথমে তালিকা ভুক্ত হয়ে থাকে।
  • আপনি যে সকল ফাইল গুলো আর চান না সেগুলো ডিলিট করার জন্য নির্বাচন করে ট্র‍্যাশ ক্যান আইকনে ট্যাপ করুন।
  • এবার সাইড প্যানেল থেকে ট্র‍্যাশ এ গিয়ে এম্পটি ট্র‍্যাশ নির্বাচন করুন।

গুগল ফটোসের ক্ষেত্রেও বড় সাইজের ছবি কিংবা ভিডিওগুলো ডিলিট করার জন্য আপনি আলাদা অপশন পেয়ে যাবেন। এগুলো বাদেও আপনি চাইলে সেটিংস পেজে গিয়ে আপনার আপলোড করা ফাইল গুলোর কোয়ালিটি কমিয়ে দিতে পারবেন। এতে করে গুগল ফটোস থেকেও আপনি জায়গা ফাকা করতে পারবেন। তবে আপনি যদি আপনার সকল গুরুত্বপূর্ণ এবং স্মরণীয় মুহূর্তের ছবি গুলো গুগল ফটোসে উচ্চ রেজোল্যুশনে সংরক্ষণ করে থাকেন তাহলে এই পদ্ধতি আপনার জন্য কাজে নাও দিতে পারে। 👉 এন্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ চেক এবং ফাঁকা করার উপায়

এজন্য আপনি চাইলে যে সকল স্ক্রিনশট আপনার কাছে খুব বেশি একটা গুরুত্ব বহন করে না সেগুলো চির কালের জন্য ডিলিট করে দিতে পারেন। এগুলো অটোমেটিক ভাবে গুগল ফটোসে ব্যাক আপ হওয়ার সময় শনাক্ত করা হয় এবং এগুলো আর্কাইভ ফোল্ডারের অধীনে পাওয়া যাবে। যেটি সাধারণত লাইব্রেরির নিচের দিকে পেয়ে যাবেন। এতো কিছুর পরও যদি আপনার আরো জায়গার প্রয়োজন হয় তাহলে গুগলের ওয়ান সাবস্ক্রিপশন কেনার ব্যাপারে চিন্তা করুন। এক্ষেত্রে আপনি ১০০ জিবি স্টোরেজ প্রতি মাসে ২ ডলার, ২০০ জিবি স্টোরেজ প্রতি মাসে ৩ ডলার এবং ২ টেরা বাইট প্রতি মাসে ১০ ডলারের মাধ্যমে ক্রয় করে নিতে পারেন।

শেষকথা

আপনি যদি জিমেইল এর নতুন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে শুরু থেকেই আপনার অদরকারী ফাইল ডিলিট করার অভ্যাস তৈরি করা শুরু করুন। এতে করে আপনি ভবিষ্যতে লাভবান হবেন। জিমেইল স্টোরেজ ফাকা করা সম্পর্কিত আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারবেন। এছাড়াও নিত্য নতুন টেকনোলজি বিষয়ক নানা ধরনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং প্রয়োজনীয় সকল ধরনের টিপস এন্ড ট্রিকস পেতে চোখ রাখুন আমাদের এই ওয়েবসাইটে। 

📌 পোস্টটি শেয়ার করুন! 🔥

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button