News

একই স্থানে নৌকা ও ঈগল প্রার্থীর সভা, ১৪৪ ধারা জারি

গোপালগঞ্জ-১ আসনের মুকসুদপুর পাইলট বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী একই সময়ে জনসভার আহ্বান করায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

বুধবার (৩ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসক কাজী মাহবুবুল আলম স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ-১ (মুকসুদপুর-কাশিয়ানীর একাংশ) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মুহাম্মদ ফারুক খান (নৌকা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. কাবির মিয়া (ঈগল) প্রতীকের প্রার্থী একই স্থানে একই সময় জনসভা আহ্বান করায় গোপালগঞ্জের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মাহবুবুল আলম এ ১৪৪ ধারা জারি করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে সংসদীয় আসন-২১৫ গোপালগঞ্জ-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. কাবির মিয়া ৪ জানুয়ারি বিকেল ৩ ঘটিকায় মুকসুদপুর পাইলট বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নির্বাচনী জনসভা করবেন এবং একই দিনে একই সময়ে একই স্থানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মুহাম্মদ ফারুক খান নির্বাচনী জনসভা করতে চান। ফলে উক্ত নির্বাচনী জনসভাকে কেন্দ্র করে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিতে পারে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সেহেতু উক্ত স্থানে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে আমি কাজী মাহবুবুল আলম, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, গোপালগঞ্জ ১৮৯৮ সালের ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৬ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে মুকসুদপুর পৌরসভাধীন মুকসুদপুর পাইলট বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ৪ জানুয়ারি ২০২৪ তারিখ সকাল ৬টা হতে ৫ জানুয়ারি সকাল ৬টা পর্যন্ত ফৌজদারি কার্যবিধির ১৪৪ ধারা জারি করলাম।

এ ধারা মোতাবেক উল্লিখিত সময়ে ওই স্থানে যে কোন ধরণের সমাবেশ, মিছিল, অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য বহন, মাইকিংসহ জনশান্তির বিঘ্ন সৃষ্টি হয় এমন যে কোন কাজ নিষিদ্ধ ঘোষণা করলাম। একই সঙ্গে উল্লিখিত এলাকায় ৪ (চার) জনের অধিক ব্যক্তির চলাচল ও সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলাম।

নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না। এ আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে প্রযোজ্য আইনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


বাংলাদেশ জার্নাল/সামি

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button