News

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন না বেন স্টোকস

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন না বেন স্টোকস। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে আজ জানানো হয়েছে, জুনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্বকাপ খেলতে আগ্রহী নন এই ইংলিশ অলরাউন্ডার ।

বিবৃতিতে স্টোকস বলেছেন, চোট সারিয়ে পরিপূর্ণ অলরাউন্ডার সত্তা ফিরে পেতেই তিনি এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাই স্টোকসকে ছাড়াই ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিতব্য টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেবে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। এর আগে আইপিএল থেকেও নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক।

মাঠের পারফরম্যান্সে দুঃসময় যাচ্ছে ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক বেন স্টোকসের। নিজে ব্যক্তিগতভাবে যেমন ভালো করতে পারেননি, তেমনি ইংলিশরাও দলীয় সাফল্য পাচ্ছে না। এরই মাঝে যখন চলতি বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দোরগোড়ায়, নতুন করে চমকে দেওয়া এক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্টোকস। এই তারকা অলরাউন্ডার ইংলিশদের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। মূলত পুরো গ্রীষ্ম মৌসুমের ক্রিকেট থেকেই বিরতি চেয়েছেন স্টোকস। এর মাঝে আগামী জুনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। যেখানে নিজের নাম না রাখতে ইসিবিকে অনুরোধ করেছেন ৩২ বছর বয়সী এই তারকা।

ইনজুরি থেকে সেরে উঠতে গত নভেম্বরে ওয়ানডে বিশ্বকাপ শেষে হাঁটুতে অস্ত্রোপচার করেছিলেন স্টোকস। এর আগে থেকেই তিনি বোলিং বন্ধ রেখেছিলেন। এখনও যা থেকে তিনি পুরোপুরি সেরে উঠতে পারেননি। ফলে ক্রিকেট থেকে বিরতি নিয়ে পূর্ণাঙ্গ অলরাউন্ডার হয়ে ফিরে আসতে চান এই ইংলিশ তারকা। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের বিশ্বকাপ শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুটি তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড। ওই সিরিজ দিয়ে স্টোকস পূর্ণ ফিট হয়ে ফিরতে চান।

ইসিবির বিবৃতিতে দেওয়া মন্তব্যে স্টোকস জানিয়েছেন, ‘আমি কঠোর পরিশ্রম করছি এবং বোলিং ফিটনেস ঠিক করার দিকেই পুরো মনোযোগ দিচ্ছি, যাতে সব ফরম্যাটের ক্রিকেটেই পরিপূর্ণ অলরাউন্ডার হয়ে ফিরতে পারি। আইপিএল (২০২৪) এবং বিশ্বকাপে নিজের এই আত্মত্যাগের পর আশা করি ভবিষ্যতে পূর্ণ অলরাউন্ডার হয়ে ফিরব।’

চলমান আইপিএল আসর শুরুর আগে ভারতের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলেছে ইংল্যান্ড। যেখানে স্টোকসের দল ন্যূনতম লড়াইও দেখাতে পারেনি। যদিও সিরিজটা তারা জয় দিয়ে শুরু করেছিল, পরবর্তীতে ভারতে তাদের সফর শেষ হয় ৪-১ ব্যবধানে হেরে। যেখানে শেষ টেস্টে ৫ ওভার বোলিং করেছিলেন স্টোকস। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘হাঁটুর ইনজুরির পর আমি ভারত সফর দিয়ে বোলিং থেকে কতটা দূরে আছি বুঝতে পারি, নয় মাস বোলিং থেকে দূরে আছি। এজন্য কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে খেলতে চাই। আশা করি ডারহামও তাদের ডিফেন্ডিং শিরোপা ধরে রাখবে।’

উল্লেখ্য, ১ জুন থেকে পর্দা উঠবে ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসরের। এরপর ৪ মার্চ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বার্বাডোজে নিজেদের যাত্রা শুরু করবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ইংলিশরা। এরপর গ্রুপপর্বে তারা মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া, ওমান ও নামিবিয়ার বিপক্ষে।

বাংলাদেশ জার্নাল/টিআর

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button